চিংড়ি মাছের কাবাব তৈরির দুইটি নিয়ম

চিংড়ি মাছের কাবাব


চিংড়ি মাছের কাবাব তৈরির দুইটি নিয়ম
কাবাব বাটা মাংস বা মাছ এবং বিভিন্ন মশলার মিশ্রনে তৈরি বিশেষ এক প্রকার অভিজাত খাবার।
এটি সাধারণত কিছু বিশেষ ভারি রান্না যেমন বিরিয়ানী, পোলাও বা খিচুর সাথে হালকা কিছু খাওয়ার জন্য তৈরি করা হয়। চিংড়ি মাছের কাবাব তৈরির দুইটি নিয়ম জেনে নেই।

যা যা লাগবে:

চিংড়ি মাছ ৫০০ গ্রাম, ছোলার ডাল ২০০ গ্রাম, আলু ২০০ গ্রাম বা ২/৩টি, ডিম ২টি, কর্নফ্লাওয়ার ১ চামচ, পেঁয়াজবাটা ৩/৪ চামচ, রসুনবাটা ২/৩ চামচ, আদাবাটা ও জিরাবাটা ২ চামচ, কাঁচামরিচ ৩/৪টি, হলুদ, মরিচ ও ধনেগুড়া ১ চামচ, দারুচিনি, এলাচ ও গোলমরিচ গুড়া ২ চামচ, ধনেপাতা ও পুদিনাপাতা ৫/৬টি, বিস্কুটের গুড়া ২০০ গ্রাম, বিটলবণ, লবণ ও তেল বা ঘি পরিমাণমত।

কাবাবের উপকরণ
কাবাবের উপকরণ

জেনে নিন   চিংড়ি ভুনা

প্রথম নিয়ম:

যেভাবে তৈরি করবেন:

১) আলু ধুয়ে সিদ্ধ করার পর ছিলে ভর্তার বানিয়ে রাখুন এবং চিংড়ি মাছ কেটে পরিষ্কার করে ভালভাবে ধুয়ে নিন। ডিম ভেঙ্গে ফেটে রাখুন ও বিস্কুটের গুড়া শুকনো বাটিতে রেখে দিন।
২) চিংড়ি মাছ ও ছোলার ডালের সাথে সব মসলা দিয়ে ১৫/২০ মিনিট সিদ্ধ করুন। (আলাদা করেও সিদ্ধ করতে পারেন)
৩) ডাল ও মাছ ঠান্ডা করে পাটায় পিষে অথবা ব্লেন্ড করে নিন। এরপর ব্লেন্ড করা মাছ-ডালের সাথে সিদ্ধ আলু, ধনেপাতা, পুদিনাপাতা, লবণ ও ঘি দিয়ে ভাল করে মাখিয়ে নিন।
৪) এবার গোলাকার বল তৈরি করে দু’হাত দিয়ে চ্যাপ্টা করে সবগুলি কাবাবের আকারে বানিয়ে রাখুন।

কাবাব ভাজার আগে
কাবাব ভাজার আগে
৫) এবার প্যানে তেল গরম করে একটি একটি করে কাবাব নিয়ে ডিমে চুবিয়ে পরে বিস্কুটের গুড়ার মধ্যে গড়িয়ে গরম তেলে দিয়ে দিন।
৬) একটু পর পর উল্টিয়ে দিন, হালকা লাল হয়ে আসলে নামিয়ে ফেলুন। বাকীগুলিও এভাবে ভেজে নিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন। ঠান্ডা হয়ে গেলে পরবর্তীতে পরিবেশনের জন্য মাইক্রোওভেনে গরম করে নিতে পারেন।



দ্বিতীয় নিয়ম:

যেভাবে তৈরি করবেন:

১) আলু ধুয়ে সিদ্ধ করে ছিলে ভর্তার বানিয়ে রাখুন এবং চিংড়ি মাছ কেটে পরিস্কার করে ভালভাবে ধুয়ে নিন।
২) চিংড়ি মাছ, ছোলা-ডালের সাথে সব মসলা দিয়ে সিদ্ধ করুন ১৫/২০ মিনিট।(আলাদা করে সিদ্ধ অথবা ভেজে নিতে পারেন)
৩) ঠান্ডা করে পাটায় পিষে বা ব্লেন্ড করে নিন, এরপর ব্লেন্ড করা মাছ/ডালের সাথে সিদ্ধ আলু, ডিম, কর্নফ্লাওয়ার, ধনেপাতা, পুদিনাপাতা, লবণ ও ঘি দিয়ে ভাল করে মাখিয়ে নিন।
৪) এবার গোলাকার বল তৈরি করে দু’হাত দিয়ে চ্যাপ্টা করে সবগুলি কাবাবের আকারে বানিয়ে রাখুন।

কাবাব ভাজার পর
কাবাব ভাজার পর
৫) প্যানে তেল গরম করুন, একটি একটি করে কাবাব গরম তেলে ছেড়ে দিন। একটু পর পর উল্টিয়ে দিন এবং হালকা লাল হয়ে আসলে নামিয়ে ফেলুন।
৬) বাকীগুলিও এভাবে ভেজে নিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন। ঠান্ডা হয়ে গেলে পরবর্তীতে পরিবেশনের জন্য মাইক্রোওভেনে গরম করতে পারেন।


*সুস্থ্য সবল দেহের জন্য নিজ ও নিজের পরিবারকে পুষ্টিকর ও স্বাস্থ্যসম্মত খাবার খাওয়ান ও  আশেপাশে অন্যদেরকেও উৎসাহিত করুন ও খেয়াল রাখুন।

লেখাটি আপনি ভিডিও আকারে দেখতে পারেন -




------------------------------------------------

আমাদের ফেসবুক পেজ @NURStudioBD
আমাদের ইউটিউব চ্যানেল @Cooking, Health, & Beauty
আমাদের গুগল প্লাস সংযোগ @Profile  @Community 

মন্তব্যসমূহ