চুলের বিভিন্ন সমস্যার সমাধানে মেহেদি পাতার ব্যবহার

চুলের যত্নে মেহেদি পাতার ব্যবহার




চুলের বিভিন্ন সমস্যার সমাধানে মেহেদি পাতার ব্যবহার
চুলের বিভিন্ন সমস্যার সমাধানে মেহেদি পাতার ব্যবহার

চুলের যত্নে মেহেদি পাতার ব্যবহার অনেক পুরোনো, যদিও মেহেদি পাতা আরো অনেক কারণে ব্যবহার হয়ে থাকে। চুলের বিভিন্ন ধরনের  সমস্যার সমাধানে মেহেদি পাতার তুলনা হয় না। মেহেদি পাতা খুব সহজে পাওয়া যায়, যেমন শহর এলাকার বাজারে সব সময় কাঁচা মেহেদি পাতা পাওয়া য়ায়, এবং এর ব্যবহারও সহজ। মেহেদি পাতা শুকিয়ে গুড়ো করে রেখে দিলে যেকোন সময় ব্যবহার করা যায়, তবে শুকনো পাতার থেকে তাজা পাতা বেশী উপকারী। প্রাকৃতিকভাবে সাদা চুল রং করার ক্ষেত্রে মেহেদি পাতার তুলনা নেই; এমনকি কালো চুলে ব্যবহারে চুল আরও কালো হয়। এছাড়াও হাত, পা ও নখ সাজাতেও মেহেদি পাতা ব্যবহার হয়ে থাকে।

বিশেষ কিছু উপকারিতা 

চুল ঘন হয়, চুলের গুড়া শক্ত করে, রুক্ষতা দূর করে, চুল রেশমী ও ঝরঝরে করে,  মাথা ঠান্ডা রাখে, চুলের আগা ফাটা রোধ করে, খুশকি দূর করে, চুলের স্বাস্থ্য ঠিক রাখে এবং সাদা চুল রং করে।


চুলের বিভিন্ন ধরনের  সমস্যার সমাধানের উপায়ে মেহেদি পাতার কিছু বিষেশ ব্যবহার যার বিবরণ দেয়া হল:-

খুশকি দূরে মেহেদি 

খুশকি দূর করার জন্য বাজারের শ্যাম্পু ব্যবহার করেও কাজ হয় না, কিন্তু শুধু  মেহেদি পাতা পরিমাণমত পিষে নিয়মিত প্রতি সপ্তাহে একবার ব্যবহারে মাথার ত্বকে থেকে খুশকি দূর করবে। খুশকি দূরের জন্য মেহেদি পাতার সাথে ৩/৪টি  আমলকি পিষে মাথার ত্বকে লাগিয়ে আধা ঘন্টা রেখে দিলে খুশকি দূর হবে এবং চুল মজবুত হবে। এছাড়াও ১/২ চামচ লেবুর রস অথবা ও ১ চামচ মেথি পিষে মিশিয়ে মাথায় লাগিয়ে ১ ঘন্টা রেখে দিলে খুশকি দূরের সাথে সাথে চুল ঘন কালো ও চুল পড়া রোধ করে।


বাটা মেহেদি
বাটা মেহেদি

রুক্ষতা দূরে মেহেদি 

মেহেদি পাতার সাথে ১টি ডিমের সাদা অংশ ও টকদই ২/৩ চামচ মিশিয়ে ব্যবহারে চুলের পুষ্টি  সংযোজন হবে ও চুলের রুক্ষতা দূর করে, চূল উজ্জল ও রেশমী হবে।


চুল পড়া রোধে মেহেদি  

সপ্তাহে ১ বার  মেহেদি পাতা পিষে অথবা ব্লেন্ড করে সাথে ১/২ চামচ অলিভ অয়েল  মিশিয়ে মাথার ত্বকে ও চুলে লাগিয়ে ৩০-৫০ মিনিট রেখে শ্যাম্পু ব্যবহার না করে শুধু পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলে ১দিন পর শ্যাম্পু করলে চুল পড়া  কমবে ও সতেজ হবে এবং মাথা ঠান্ডা রাখবে। এছাড়াও নারিকেল তেল বা সরিষা তেল অথবা অন্য কোন তেলের সাথে আধা চামচ মেথি মিশিয়ে গরম করে এরপরে ঠান্ডা করে মেহেদি পাতার সাথে মিশিয়ে সপ্তাহে ১/২  বার   মাথায় ও চামড়ায়  লাগালেও চুল রেশমী ও চুল পড়া কমবে।

প্রাকৃতিক রং-এ মেহেদি  

তাজা মেহেদি পাতা পিষে অথবা মেহেদি পাতার ৫/৬ চামচ শুকনো গুড়োর  সাথে চা-পাতার পানি অথবা কফির পানি মিশিয়ে দিলে চুলে সুন্দর গাঢ় লালচে রং হবে। মাসে ২/৩ বার ব্যবহারে রং দীর্ঘস্থায়ী হবে।


কিছু পরার্মশ:

- মেহেদি দেয়ার আগের দিন চুলে তেল দেয়া ভালো।
- চুলে বাজারের কোন ক্যামিকেল রং ব্যাবহার করে থাকলে তবে কম করে হলেও ২ থেকে ৩ মাস পর মেহেদি পাতা ব্যবহার করা উচিত, নাহলে চুলের ক্ষতি হতে পারে।
- মেহেদি পাতা লাগিয়ে বেশি সময় রাখা ভাল, কম করে হলেও ৪০ হতে ৫০মিনিট রাখলে খবুই ভাল কাজ করবে আরও বেশি সময় রাখা যায় তবে অতিরিক্ত সময় ধরে রাখলে চুল বেশি শুষ্ক ও রুক্ষ হয়ে যাবে।


চুল রং করার প্রাকৃতিক উপায় হল মেহেদি
চুল রং করার প্রাকৃতিক উপায় হল মেহেদি 

- মেহেদি পাতা চুলে লাগানোর সময় কান, ঘাড় ও গলায় কাপড় দিয়ে ঢেকে নিলে রং লাগবে না। হাতে গ্লাফস্ লাগিয়ে নেয়া যায় যাতে হাতেও রং না লাগে। এছাড়াও গ্লিসারিন লাগিয়ে নেয়া যায় এতে রং কম হবে এমনকি উঠেও যাবে সহজে।
- একেক জনের চুল ত্বক একেক রকমের হয়ে থাকে, এলার্জি  থাকলে বা মাথার চামড়ায়  কোন ঘা বা ইনফেকশন থাকলে ব্যবহার না করাই ভাল।

-চুলে নিয়মিত তেল দেয়া ভাল, তবে সবসময় মালিশ করে তেল দিলে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধির সাথে চুল ঘন হয়।

লেখাটি আপনি ভিডিও আকারে দেখতে পারেন-




---------------------

আমাদের ফেসবুক পেজ@NURStudioBD
আমাদের ইউটিউব চ্যানেল Cooking, Health, & Beauty
ইংরেজি ভাষায় আমাদের লাইফস্টাইল ব্লগটি ঘুরে আসুন – Coeval Lifestyle

মন্তব্যসমূহ