মসুর ডালের উপাদান ও গুণাগুণ




মসুর ডালের উপাদান ও গুণাগুণ



আমরা সবাই কমবেশি সব ধরনের ডাল খেয়ে থাকি কিন্তু মসুর ডাল খুবই জনপ্রিয় বলে দেখা যায় মুসুর ডালই বেশি খেয়ে থাকি। মসুর ডাল বাংলাদেশের অন্যতম প্রধান খাদ্যশস্যের একটি যার ইংরেজি নাম Red lentil। 


মসুর ডাল উচ্চ আমিষসমৃদ্ধ যা মানব দেহে আমিষের অভাব পূরণ করার জন্য যথেষ্ট। অনেকেই আছেন খাবার টেবিলে অন্যান্য খাবারের সাথে ডাল ছাড়া খাবারে তৃপ্তি মিটে না। মসুর ডাল সাধারণভাবে রান্না করা ছাড়াও বিভিন্নভাবে খাওয়া যায়, যেমন - ভর্তা, ভুনা, চচ্চরি, নিরামিষ, পেঁয়াজু, খিচুরি, পুরি, চানাচুর। 

মসুর ডালের পুষ্টি উপাদান 


অন্যান্য ডালের তুলনায় মসুর ডালে প্রচুর পরিমাণ প্রোটিন ও শর্করা রয়েছে। প্রতি ১০০ গ্রাম মসুর ডালে রয়েছে - জলীয় অংশ ১২.৪ গ্রাম, খনিজ পদার্থ ২.১ গ্রাম, আঁশ ০.৭ গ্রাম, খাদ্য শক্তি ৩৪৩ কিলো ক্যালরি, আমিষ ২৫.১ গ্রাম, চর্বি ০.৭ গ্রাম, ক্যালসিয়াম ৬৯ মিলিগ্রাম, আয়রন ৪.৮ মিলিগ্রাম, ক্যারোটিন ২৭০ মাইক্রোগ্রাম, ভিটামিন বি-২ ০.৪৯ মিলিগ্রাম এবং শর্করা ৫৯.০ গ্রাম। 


মসুর ডালের গুণাগুণ


ওজন কমাতে সাহায্য করে, আঁশ থাকার কারণে হজমে সাহায্য করে ও কোলেস্টেরল কমায়, কোষ্টকাঠিন্য দূর করে, হার্ট ভালো রাখে ও স্ট্রোকের ঝুকি কমায়, ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করে, উচ্চ রক্তচাপ কমায়, গর্ভবতী মায়েদের জন্য উপকারী, আয়রন থাকার কারণে রক্তশুন্যতা দূর করে। 



মসুর ডাল দিয়ে রুপচর্চা


মসুর ডাল পেষ্ট করে গায়ে মাখলে শরীরের লোমকূপের কোনা কোনা থেকে ময়লা তুলে ত্বক আরও সুন্দর ও ফর্সা করে তুলে, ত্বক সতেজ করে, ত্বকের কাল দাগ মোচন করে, মেছদা দূর করে, বলিরেখা দূর করে, রোদে পোড়া দাগ দূর করে, ও চর্মরোগ দুর করে। 


আরও পড়ুন শীতকালের সবজি বিট এর গুণাগুণ 

লেখক/অবদানকারী: অবদানকারী পৃষ্ঠাটি পড়ুন 

বিজ্ঞাপন


আমাদের ফেসবুক পেজ @NURStudioBD 

আমাদের ইউটিউব চ্যানেল @Cooking,Health,&Beauty

লেখাটি আপনি ভিডিও আকারে দেখতে পারেন - মসুর ডালের উপাদান ও গুণাগুণ 


আরও একটি সম্পর্কিত পোস্ট পড়ুন মসুর ডালের গুণাগুণ 

আরও একটি সম্পর্কিত পোস্ট পড়ুন মসুর ডালের উপকারিতা, ব্যবহার এবং ক্ষতিকর দিক 


মন্তব্য