সহজ উপায়ে ভূনা খিচুরি

ভূনা খিচুরি

ভুনা খিচুরি
খিচুরি আমাদের কম বেশি প্রায় সবারই পছন্দের একটি খাবার। এটি পুষ্টিকর ও সহজপাচ্য এবং শক্তিদায়ক খাবার যা কিনা ছোট থেকে বড় সকলের জন্যে উপকারি। এক প্লেট খিচুড়িতে ১৭৭ ক্যালোরি শক্তি, ৩২.৩ গ্রাম শর্করা, ৮.৪ গ্রাম প্রোটিন, ১.৫ গ্রাম চর্বি আছে। এছাড়াও ক্যালসিয়াম, ভিটামিন-সি এবং আয়রনও রয়েছে। আসুন জেনে নেই কিভাবে সহজে ভূনা খিচুরি তৈরি করবেন।

যা যা লাগবে: 

পোলাওয়ের চাল ৫০০ গ্রাম,
মসুরের ডাল ৫০০ গ্রাম,
কাঁচা মরিচ ৭/৮টি,
পেঁয়াজকুচি ১/২ কাপ, 
তেজপাতা ৪/৫টি,

উপকরন: পোলাওয়ের চাল, মসুরের ডাল, তেল, মরিচ, পেঁয়াজ কুচি, এলাচ, দারচিনি, তেজপাতা।
দারুচিনি ৫/৬ টুকরা,
এলাচ ৭/৮টি,
হলুদ ১ চামচ,
আদা বাটা ২চামচ, 
জিরাবাটা ২ চামচ,
পেঁয়াজ ও রসুনবাটা ৩/৪ চামচ,
ধনেপাতা, গরম  পানি, লবন, ঘি ও তেল পরিমাণ মত।

উপকরন: হলুদ, ধনে ও মরিচ গুড়া; পেঁয়াজ-রসুন, আদা ও জিরা বাটা।
আরও জানুন ডিম চপ

যেভাবে তৈরি করবেন: 
১)  চাল ও ডাল করে আলাদা আলাদা করে ভালভাবে ধুয়ে ছেকে রেখে দিন।
২) পাতিল বা কড়াইএ একটু গরম করে সেখানে তেল বা ঘি দিয়ে সাথে তেজপাতা, পেঁয়াজকুচি দিয়ে নেড়ে কিছুক্ষন পর চালগুলি ঢেলে দিয়ে ৫/৬ মিনিট ভাজুন।
৩) এরপর ডাল দিয়ে সাথে লবন, হলুদ, পেঁয়াজবাটা, রসুনবাটা, জিরাবাটা, আদাবাটা, এলাচ ও দারুচিনি দিয়ে আরও ৭/৮মিনিট ধরে ভাজুন।

তেল গরম করে পেঁয়াজ কুচি, মরিচ, দারচিনি, এলাচ ও তেজপাতা দিয়ে ভাজা হচ্ছে।
৪) ভাজা হয়ে গেলে গরম পানি পরিমান মত ঢেলে দিয়ে একটু নাড়িয়ে তারপর ঢেকে দিন(অল্প আঁচে)আরও ৭/৮ মিনিটের জন্য।
৫) ৭/৮ মিনিট পর পানি কিছুটা শুকিয়ে আসলে একটু নেড়ে মৃদুঁ আাঁচে অথবা একটি লোহার তাওয়ায় বসিয়ে দিন ও ঢেকে রাখুন ১০/১৫মিনিট জন্য।


৬) ঢাকনা খুলে আবার নাড়ুন, চাল শক্ত থেকে থাকলে ৫/৬ মিনিট চুলায় রাখুন ও ধনেপাতা ছিটিয়ে দিয়ে নামিয়ে ফেলুন।

ভূনা খিচুরি
৭) সালাদ, আচার বা ডিম দিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুন।

খিচুরি মাছ, মাংস, ডিম, সবজি বা আপনার পছন্দ অনুযায়ী উপকরন দিয়েও রান্না করতে পারেন।

ভূনা খিচুরি

লেখাটি আপনি ভিডিও আকারে দেখতে পারেন -



---------------------

আমাদের ফেসবুক পেজ - @NURStudioBD

আমাদের
 ইউটিউব চ্যানেল -  Cooking, Health, & Beauty

ইংরেজি ভাষায় আমাদের লাইফস্টাইল ব্লগটি ঘুরে আসুন – Coeval Lifestyle


মন্তব্যসমূহ