চুলের যত্নে ঘৃতকুমারীর ব্যবহার




চুলের যত্নে ঘৃতকুমারীর ব্যবহার 



আমরা অনেকেই কমবেশি জানি যে বিভিন্ন ঔষধি গাছের মধ্যে ঘৃতকুমারী একটি বহুজীবি ভেষজ ঔষধি গাছ যা পুষ্টিগুনে ভরপুর। 

ঘৃতকুমারীতে মধ্যে যেসব উপাদান রয়েছে সেগুলো হচ্ছে ২০ রকমের খনিজ ও আরও রয়েছে ২২টা অ্যামিনো অ্যাসিড যা দেহের প্রয়োজন এবং এছাড়াও রয়েছে ভিটামিন এ, বি১, বি২, বি৬, বি১২, সি এবং ই। 


অনেক বছর আগে থেকেই ঘৃতকুমারী ঔষধি হিসেবে, চুলের যত্নে ব্যবহার করে আসছে। আসুন জেনে নেই চুলের যত্নে ঘৃতকুমারীর ব্যবহার ও নিয়মাবলীগুলো।

ঘৃতকুমারী ব্যবহারের নিয়মাবলী:


- প্রতিদিন ঘৃতকুমারীর রস পান করলে শরীর ও স্বাস্থ্য অটুট রাখে যা চুলের জন্যও অনেক উপকারী।

- সপ্তাহে ১বার ঘৃতকুমারীর পেষ্ট মাথার চামড়ায় লাগিয়ে আধা ঘন্টা রেখে ধুয়ে ফেললে চুল পড়া বন্ধ হবে ও নতুন চুল গজাতেও সাহায্য করবে। 

- খুসকির সমস্যা দুরের জন্য ঘৃতকুমারীর জেলের সাথে ১ চামচ লেবুর রস মিশিয়ে মাথার চামড়ায় লাগিয়ে ২০/২৫ মিনিট রেখে শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন।

- চুল উজ্জল ও ঝরঝরে করার জন্য সপ্তাহে ১ বার আধা কাপ ঘৃতকুমারী জেলের সাথে টকদই মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে চুলে লাগিয়ে ১৫/২০ মিনিট রেখে শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। 

- মাথা ঠান্ডা রাখার জন্য ২/৩ দিন পরপর ঘৃতকুমারীর পেষ্ট মাথার তালুতে ২০/২৫ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। 

- রুক্ষ ও শুষ্ক চুলের জন্য মাসে ১/২ বার আধা কাপ ঘৃতকুমারী জেলের সাথে, ঘৃতকুমারীর জেলের অর্ধেক পরিমাণ টকদই ও ১ চামচ নারিকেল তেল মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে মাথার চামড়া ও চুলে লাগিয়ে ১৫/২০ মিনিট রেখে শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন এত চুলের খুসকি দূর হবে।

- চুল ঝলমলে কালো ও ঘন করার জন্য ১৫ দিনে ১ বার ২/৩ চামচ ঘৃতকুমারী জেল ও সাথে ১টি ডিমের সাদা অংশ ও টকদই মিশিয়ে প্যাক তৈরি করে চুলে লাগিয়ে ২০/২৫ মিনিট রেখে শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। 


- ঘনঘন চুল পড়া রোধ করার জন্য ঘৃতকুমারীর জেলের সাথে ১ কাপ পেঁয়াজের রস মিশিয়ে মাথার চামড়ায় লাগিয়ে ১ ঘণ্টা রেখে শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন।

- চুলের ভেঙ্গে পড়া রোধ করার জন্য সপ্তাহে ২বার ঘৃতকুমারীর জেলের সাথে বাদামের মিশিয়ে মাথার চামড়ায় ও চুলে লাগিয়ে ২০ মিনিট রেখে শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। 

আরও পড়ুন চুলের যত্নে পেঁয়াজ 

- সপ্তাহে ২বার রাতে ঘৃতকুমারীর জেলের সাথে ক্যাস্টার অয়েল ও মেথির পেষ্ট ২ চামচ মিশিয়ে চুলের গোড়ায় লাগিয়ে পরদিন শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন এতে চুলের গোড়া শক্ত হবে এবং চুলের আগা ফাটা রোধ করবে। 


*** যাদের ঘৃতকুমারীতে অ্যালার্জি হয় বা যারা জানেন না ঘৃতকুমারীতে অ্যালার্জি হয় কিনা তারা একটু ঘৃতকুমারীর জেল হাতের কবজিতে একটু লাগিয়ে পরীক্ষা করে দেখুন অ্যালার্জি আছে কিনা না। 

লেখক/অবদানকারী: অবদানকারী পৃষ্ঠাটি পড়ুন 

বিজ্ঞাপন


আমাদের ফেসবুক পেজ @NURStudioBD

আমাদের ইউটিউব চ্যানেল @Cooking,Health,&Beauty 

ইংরেজি ভাষায় আমাদের লাইফস্টাইল ব্লগটি ঘুরে আসুন AUHStyle - It's A Coeval Lifestyle


আরও একটি সম্পর্কিত পোস্ট পড়ুন চুল পড়া বন্ধ করবে অ্যালোভেরা জেল 

আরও একটি সম্পর্কিত পোস্ট পড়ুন চুলের যত্নে ঘৃতকুমারী 

মন্তব্যসমূহ